in হযরত মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মাদ ফজলুল করীম (রহঃ)

যিকির করতে করতে বিদায় নেয়ার সৌভাগ্য

রসূলে আকরাম সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন, তোমরা যেমনভাবে জীবন কাটাবে তেমনিভাবে মৃত্যুবরণ করবে। আবার তোমরা যেমনভাবে মৃত্যুবরণ করবে তেমনিভাবে (পরকালে) পুনরুত্থিত হবে। আমাদের শাইখ (রহঃ) কে আজীবন দেখা গিয়েছে মাওলায়ে পাকের যিক্রের মাধ্যমে যবান মোবারক ভিজিয়ে রাখতে। রসূলে কারীম সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর পবিত্র বাণী “তোমার জিহব্বা যেন সর্বদা আল্লাহ তায়ালার যিক্রের কারণে ভিজা থাকে” এর বাস্তব নমুনা এ যামানায় যেন তিনিই ছিলেন। অনেক সময় তিনি বড়শীর মাধ্যমে মাছ ধরতেন। ঐ সময়েও তাঁর এক হাতে দেখা যেত তাছবীহ এবং আরেক হাতে দেখা যেত বড়শীর লাঠি। হুযূরের জীবনে দেখা গিয়েছে সার্বক্ষণিক যিক্রুল্লাহ, তাই হাদীছ শরীফ অনুযায়ী তাঁর ইন্তিকালের সময়েও যবানে যিক্রুল্লাহ-ই- জারী হয়েছে। পরপারে যাত্রার আলামত শুরু হওয়ার সময়েই তাঁর যবানে প্রবলভাবে শুরু হয়েছিল মাহবূবে হাক্বীক্বী আল্লাহ তায়ালার যিক্র।