আল্লাহ! ফজলুল করীম (রহ.) জান্নাতবাসী হয়েছেন, তাঁর রুহানি ফয়জ-বরকতে আমাদেরকে কলবকে নূরানি করে দিন।’

১৬ জুন ২০১৪ সোমবার হাটহাজারী এবি কমিউনিটি সেন্টারে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আয়োজিত ওলামা ও সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হল। অনুষ্ঠানে মুনাজাত পরিচালনা করেছেন চট্টগ্রামের একজন প্রখ্যাত আলেমে দীন, বুযুর্গ ব্যক্তিত্ব, প্রবীণ ওয়ায়েজ ও ঐতিহ্যবাহী ফটিকছড়ি রাবার বাগান মাদরাসার মুহতামিম, পীরে কামেল হযরত মাওলানা শাহ সিদ্দিক আহমদ সাহেব। হযরত মাওলানা শাহ সিদ্দিক আহমদ একজন…

সর্বস্তরের মুসলমান ভাইদের প্রতি অসিয়ত

(১) রসূলে করীম সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এরশাদ করেছেন, আমার পরে তোমরা দেখতে পাবে যে, ইসলামের মধ্যে অনেক মতবিরোধ দেখা দিবে, তখন তোমরা আমার সুন্নাত এবং আমার সাহাবায়ে কেরামের আর্দশের ওপরে খুব মজবুত হয়ে থাকবে। তাই আমি মুসলমান ভাই-বোনদেরকে সতর্ক করে যাচ্ছি যে, বর্তমান ফিৎনা-ফাসাদের যামানায় খুব সতর্কতার সাথে সঠিক দ্বীন এবং দ্বীনের জামাআত যাচাই-বাছাই…

হুযূরের কয়েকটি কারামত

কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে মিল্লাত, আরেফে রব্বানী হযরত শাহ সূফী আল্লামা সৈয়দ ফজলুল করীম, পীর সাহেব চরমোনাই (রহঃ) এর গোটা জীবনটাই ছিল কাশ্ফ, কারামত ও এলহামে পরিপূর্ণ। তাঁর জীবনের সবচেয়ে বড় কারামত ছিল- শরীয়াতের কঠোর পাবন্দী, সত্যের ওপরে দৃঢ়তা, বাতিলের মোকাবেলা ও সুন্নাতের পাবন্দী। তিনি বছরের তিনশত পয়ষট্টি দিনই দাওয়াত, তাবলীগ ও ওয়ায নসীহতের কাজে ডুবে…

মওদূদীবাদের বিরুদ্ধে পীর সাহেব চরমোনাই (রহঃ) এর যুগান্তকারী চ্যালেঞ্জ ও কিছু প্রশ্ন

ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের মুহতারম আমীর আলহাজ্জ হযরত মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মাদ ফজলুল করীম, পীর সাহেব চরমোনাই (রহঃ) ঢাকার ঐতিহাসিক পল্টন ময়দানসহ বিভিন্ন জনসভায় মওদূদী জামায়াতের বিরুদ্ধে এক ঐতিহাসিক চ্যালেঞ্জ ঘোষণা করে বলেন- জামায়াতে ইসলামী সঠিক ইসলামী দল নয়। এটা যদি কুরআন ও হাদীছের আলোকে প্রমাণ করতে না পারি তাহলে ঐ বৈঠকে তওবা করে জামায়াতে ইসলামীতে যোগ…

তাঁর মতো ভালো মানুষ, নির্ভেজাল মানুষ এ সময়ে আর পাওয়া যাবে না।

শাইখুল হাদীছ হযরতুল আল্লাম আযীযুল হক সাহেব (দাঃ বাঃ)। কুতুবুল আলম মুজাদ্দিদে মিল্লাত হযরত পীর সাহেব চরমোনাই (রহঃ) এর ইন্তিকালের পর অশীতিপর বৃদ্ধ তাঁর প্রাণপ্রিয় উস্তাদ হযরত শাইখুল হাদীছ আল্লামা আযীযুল হক ঢাকা থেকে সুদূর চরমোনাই গিয়ে প্রিয় ছাত্রের সাথে শেষবারের মতো মোলাকাত করেন। তিনি পীর সাহেব (রহঃ) সম্পর্কে যে বক্তব্য পেশ করেছেন তার মাধ্যমেই…

খুলনা জিয়া হলে ই,শা, আন্দোলনের ঐতিহাসিক সম্মেলনে প্রশ্নোত্তর পর্ব (জনতার প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন হযরত পীর সাহেব, চরমোনাই)

প্রশ্নঃ আপনার দল যদি খাঁটি ইসলামী দল হয় তাহলে কিছু দিন হল ইসলাম প্রতিষ্ঠার জন্য রাজনীতিতে নামলেন কেন ? আগে পাকিস্তান আমলে বা স্বাধীনতার পরে দীর্ঘকাল চুপ থাকলেন কেন ? তখন ইসলামী আন্দোলন ফরয ছিল না, না ইসলাম প্রচারে কোন সমস্যা ছিল ? উত্তরঃ এটা একটা সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগ। আমাদের পূর্ব পুরুষ সবাই সব সময়…

কুরআন-হাদীছ-ইজমা-কিয়াস যারা মেনে চলে তারা ইসলামী মৌলবাদী, আর যারা এ সব মানেনা তারা কাফের- মুরতাদ।

কুদরত-ই-খুদা শিক্ষা কমিশন বাস্তবায়ন, আলী আসগর গংদের ফাঁসির দাবী, শিখা চিরন্তন, শেখ মুজিবর রহমানের কবরের মাটি ঢাকায় এনে মাযার তৈরি, ঢাকা শহরে মূর্তিস্থাপনসহ ইসলামবিরোধী সকল অপতৎপরতা বন্ধ এবং ইসলামী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার দাবীতে ইসলামী ঐক্যজোট আহুত ২২ আগষ্ট ১৯৯৭ মানিক মিয়া এভিনিউতে ইতিহাসের স্মরণ কালের মহাসমাবেশে দেশের শীর্ষস্থানীয় ওলামা-মাশায়েখ বক্তব্য রাখেন। সমাবেশে চরমোনাইর পীর সাহেব বলেন,…

খলীফাদের তালিকা

হযরত মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মাদ ফজলুল করীম (রহঃ) এর মুরীদানের মধ্যে অর্ধলক্ষেরও বেশী ছিলেন আলিম। এদের মধ্যে হাজার হাজার ছিলেন মুফাচ্ছির, মুহাদ্দিছ, মুফতী, ক্বারী, মাদ্রাসার মুহতামিম, লেখক, সাহিত্যিক, গবেষক, খতীব ও ইসলামী চিন্তাবিদ। এ সকল আলিম মুরীদদের মধ্য থেকে ১৭ জনকে তিনি খেলাফত দান করেছেন। ► প্রথম দফায় খেলাফত দান করেছেন ১৭/১১/১৯৯০ ইং তারিখে নিম্নোক্ত ৭…

চরমোনাই বাৎসরিক মাহফিলে উল্লেখযোগ্য কার্যক্রম

◑ বয়ানঃ চরমোনাইর তিন দিনের মাহফিলে হযরত মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মাদ ফজলুল করীম (রহঃ) ৭টি বয়ান করতেন, যা ছিল হেদায়াতের আলোকবর্তিকা স্বরূপ। ◑ ওলামা-মাশায়েখ সম্মেলনঃ মাহফিলের ২য় দিনে অনুষ্ঠিত হয় ওলামা-মাশায়েখ-বুদ্ধিজীবী সম্মেলন। এতে ওলামায়ে কেরাম জনতাকে রাজনৈতিক তথা সামগ্রিক জীবন পরিচালনার দিক নির্দেশনা দিয়ে থাকেন। ◑ ছাত্র ও সুধী সম্মেলনঃ মাহফিলের তৃতীয় দিনে ছাত্র সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। দেশের…

শাজরানামা

প্রিয়তম নবী হযরত মুহাম্মাদ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ছিলেন ইল্মে মা’রিফাত ও তাসাওউফের ইমাম। তাঁর থেকে সাহাবী (রাঃ) ও সূফিয়ায়ে কেরামদের মাধ্যমে যে ধারাবাহিকতায় ইল্মে মা’রিফাত আমাদের পর্যন্ত পৌঁছেছে সে ধারাবাহিকতাকে শাজরা বলা হয়। হযরত মাওলানা সৈয়দ ফজলুল করীম (রহঃ) চিশতিয়া ছাবেরিয়া তরীকার যে সিলসিলায় রূহানিয়াতের তা’লীম প্রাপ্ত হয়েছিলেন, তা হলঃ- ❖ আরেফ বিল্লাহ হযরত…

বাইয়াত গ্রহণ ও খেলাফত লাভ

হযরত মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মাদ ফজলুল করীম (রহঃ) ছাত্র জীবনেই স্বীয় পিতা ও শাইখ হযরত মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মাদ এছহাক (রহঃ) এর নিকট তরীকতের বাইয়াত গ্রহণ করেন। জাহেরী ইল্মের পাশাপাশি তিনি বাতেনী ইল্মও অর্জন করেন। আত্মশুদ্ধি ও ইসলাহে নফস-এ-মনোনিবেশ করেন। তাঁর পিতা ছিলেন বাংলাদেশে চিশতিয়া ছাবেরিয়া তরীকার একজন প্রখ্যাত কামেল অলী ও কুতুব। পিতার সুহ্বাতে থেকে কঠোর…

জন্ম ও বংশ পরিচিতি

আল্লাহ্ সুবহানাহু ওয়া তায়ালার বান্দাদের প্রতি স্নেহ ও মায়া-মমতা এত অধিক যে, তিনি মহানবী সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর মাধ্যমে নবুওয়াত ও রিসালাতের দরওয়াজা বন্ধ করে দিলেও বান্দাদের হেদায়াতের লক্ষ্যে যুগে যুগে নায়েবে রসূল তথা আউলিয়ায়ে কেরামকে দুনিয়ায় প্রেরণ করেন। আল্লাহ্ তায়ালার নৈকট্যপ্রাপ্ত এবং সন্তুষ্টিপ্রাপ্ত এ সকল আউলিয়ায়ে কেরাম মানব জাতির হেদায়াতের লক্ষ্যে নিজেদের জীবনকে…

হাসির মাধ্যমে পৃথিবীকে বিদায়

কবি বলেন প্রথম যেদিন তুমি এসেছিলে ভবে, কেঁদেছিলে তুমি একা হেসেছিল সবে। এমন জীবন তুমি করিবে গঠন, মরণে হাসিবে তুমি কাঁদিবে ভুবন। শাইখ (রহঃ) এর ক্ষেত্রে এর বাস্তবতা সুস্পষ্ট ভাবেই পাওয়া গিয়েছিল। পৃথিবীকে তিনি বিদায় জানিয়েছেন হাসিমুখে। ইন্তিকালের পূর্বে একটু চক্ষু খুলে মুচকি হাসি দিয়ে চক্ষু যে বন্ধ করলেন আর খুলবেন না কোনদিন এ দুনিয়ায়।…

যিকির করতে করতে বিদায় নেয়ার সৌভাগ্য

রসূলে আকরাম সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন, তোমরা যেমনভাবে জীবন কাটাবে তেমনিভাবে মৃত্যুবরণ করবে। আবার তোমরা যেমনভাবে মৃত্যুবরণ করবে তেমনিভাবে (পরকালে) পুনরুত্থিত হবে। আমাদের শাইখ (রহঃ) কে আজীবন দেখা গিয়েছে মাওলায়ে পাকের যিক্রের মাধ্যমে যবান মোবারক ভিজিয়ে রাখতে। রসূলে কারীম সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর পবিত্র বাণী “তোমার জিহব্বা যেন সর্বদা আল্লাহ তায়ালার যিক্রের…

ইন্তিকাল ও দাফন

কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদুল মিল্লাত, শাইখুল মাশায়েখ, আরেফ বিল্লাহ, ইমামুল মুজাহিদীন, রাহবারে উম্মাত, শাহসূফী আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মাদ ফজলুল করীম, পীর সাহেব চরমোনাই (রহঃ) এর ইন্তিকালও ছিল তাঁর জীবনের অনন্য এক কারামত। কারণ, চরমোনাই দরবারের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই অগ্রহায়ণের মাহফিল ১, ২, ৩ অগ্রহায়ণ অনুষ্ঠিত হয়ে আসছিল। সুদীর্ঘ ৭০ বছর পূর্ব থেকেই এ নিয়মে মাহফিল চলে আসছিল। কিন্তু…

বাংলাদেশ কুরআন শিক্ষা বোর্ডের দায়িত্বশীলদের প্রতি অসিয়ত

(১) ইসলামবিরোধী এন, জি, ও, এবং দ্বীনবিরোধী প্রতিষ্ঠানে মুসলিম ছেলে-মেয়েদেরকে নাস্তিক্যবাদী অপশিক্ষার ষড়যন্ত্র হতে বাঁচানোর লক্ষ্যে বাংলাদেশের ৬৮ হাজার গ্রামে ৬৮ হাজার ক্বিরাতুল কুরআন মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করে মুসলিম ছেলে- মেয়েদেরকে কুরআন শিক্ষার কার্যকর ব্যবস্থা করতে হবে। (২) যোগ্য আমলদার উস্তাদ তৈরি করার জন্য মুয়াল্লিম প্রশিক্ষণ অপরিহার্য। কাজেই সুপরিকল্পিত পদ্ধতি প্রণয়ন করতঃ আমলদার যোগ্য উস্তাদ তৈরি…

ইশা আন্দোলনের দায়িত্বশীলদের প্রতি অসিয়ত

(১) যে জাতির মধ্যে জিহাদের জযবা নেই সে জাতি মুর্দা, কাজেই ইশা আন্দোলনের সকল দায়িত্বশীলদের মধ্যে জিহাদী জযবা জাগ্রত রাখতে হবে এবং সাহাবায়ে কেরামের নমুনায় দৃঢ়ভাবে আন্দোলনের নীতিমালা অনুযায়ী অর্পিত দায়িত্ব যথাযথ ভাবে পালন করবে। (২) আন্দোলনকে স্থিতিশীল ও সুষ্ঠু পরিচালনার নিমিত্তে খোলাফাগণ ও মজলিসে খাছের সিদ্ধান্ত মোতাবেক যিনি আমীরুল মুজাহিদীন নির্বাচিত হবেন পদাধিকার বলে…

জামিয়ার পরিচালক মণ্ডলীর প্রতি অসিয়ত

(১) জামিয়ার পরিচালক মণ্ডলী আমার প্রতিষ্ঠিত মিশনসমূহ যথাঃ বাংলাদেশ মুজাহিদ কমিটি, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন, জামিয়া ও বাংলাদেশ কুরআন শিক্ষা বোর্ড এর সকল কার্যক্রমের সাথে একমত ঘোষণা ও কর্মসূচীসমূহ বাস্তবায়নে যথাসাধ্য চেষ্টা করবেন। (২) জামিয়ার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সামনে রেখে নীতিমালা অনুযায়ী এখলাছের সাথে উহার উন্নতির জন্য সর্বদা চেষ্টা চালিয়ে যাবেন। বিশেষ করে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ…

বাংলাদেশ মুজাহিদ কমিটি ও সকল শাখা কমিটির দায়িত্বশীল-কর্মী মুজাহিদগণের প্রতি অসিয়ত

(১) প্রত্যেক দায়িত্বশীল তার দায়িত্ব সম্পর্কে আল্লাহ্র দরবারে জিজ্ঞাসিত হবে, সর্বদা এ ভয় অন্তরে রেখে দায়িত্ব পালন করবে। কোন পদের মোহ রাখবে না। (২) ত্বরীকা এবং সংগঠনের যাবতীয় দায়িত্ব হুবহু গঠনতন্ত্র ও নীতিমালা অনুযায়ী পরিচালনা করবে। (৩) কর্মীদের সাথে কখনও দুর্ব্যবহার করবে না। তাদের ত্রুটি বিচ্যুতি যথাসাধ্য ক্ষমার নজরে দেখবে এবং তাদেরকে সংশোধন করার জন্য…

আওলাদগণের প্রতি অসিয়ত

(১) শরীয়াতের যাবতীয় আহকাম যথাযথ পালন করবে। (২) আমার ত্যাজ্য সম্পত্তি ওয়ারিসদের মধ্যে শরীয়াত মোতাবেক বন্টন করবে। (৩) ভাই-বোন ও অন্যান্য আত্মীয়-স্বজনের মধ্যে সুসম্পর্ক বজায় রেখে চলবে। (৪) সর্বদা হক্কানী ওলামায়ে কেরাম ও বুযুর্গানে দ্বীনের প্রতি আন্তরিক মহব্বত রাখবে। (৫) যদি মীরাছ বন্টন ও অন্য কোন ক্ষেত্রে কখনও কোন প্রকার জটিলতার সৃষ্টি হয়, তাহলে বামুকের…